মেনু নির্বাচন করুন

যোগাযোগ ব্যবস্থা

রিক্সা, ভ্যানঅটোরিক্সা, টেম্পুমটরসাইকেল, নসিমনইত্যাদি।

আগামী দুই বছরের মধ্যে সারাদেশের আইসিটির নতুন উদ্যোক্তাদের কাছ থেকে ১ হাজার ‘ইনোভেটিভ  আইডিয়া’নেওয়া হবে। এর মধ্যে থেকে ভালো উদ্যোক্তাদের ব্যবসা সম্প্রসারণের জন্য ১ কোটি টাকা পর্যন্ত অর্থ সহায়তা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

শুক্রবার রাজধানীর ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্সে ‘ন্যাশনাল হ্যাকাথন ফর ওমেন’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। তথ্য-প্রযুক্তি ক্ষেত্রে পুরুষের পাশাপাশি নারীদেরও উদ্যোক্তা হিসেবে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, নারীরা শুধু প্রযুক্তি ব্যবহার করবে তা আমরা চাই না। আমরা চাই ব্যবহারের পাশাপাশি তারা এই খাতে উদ্যোক্তা হিসেবেও গড়ে উঠুক।

আগামী ২ বছরে ২ লাখ নারীকে আইসিটি বিষয়ে প্রশিক্ষণও দেওয়া হবে উল্লেখ করে তিনি জানান, ইতোমধ্যে ৭টি বাস কেনা হয়ে গেছে। এই বাসের মাধ্যমে ২ লাখ নারীকে প্রশিক্ষণ দেবে। এছাড়া ২০ হাজার নারীকে প্রশিক্ষণ দিয়ে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে গড়ে তোলা হয়েছে। ২০১৭ সালের মধ্যে জাতিসংঘের সহতায় আরো ১ লাখ নারীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে শুরু হওয়া ‘ন্যাশনাল হ্যাকাথন ফর উইমেন’ শেষ হবে আগামীকাল শনিবার। আসরটি যৌথভাবে আয়োজন করছে আইসিটি মন্ত্রণালয় ও ‘উইমেন ইন ডিজিটাল বাংলাদে

 

আর্থ-সামাজিকভাবে পিছিয়ে আছে এমন কিশোর-কিশোরীরাই সেই ক্লাবের সদস্য হবে, যে ক্লাবটির নাম স্বর্ণ-কিশোরী ক্লাব। স্বর্ণকিশোরী ক্লাবের কার্যক্রমের সন্ধান পাওয়া গেলো মতলব উত্তর উপজেলার চরকালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে। রোববার দুপুরে চরকালিয়া উচ্চ বিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এই ক্লাবের সদস্যরা করেছে আলোচনা সভা ও বনভোজন। অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছে স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকা, স্কুল পরিচালনা কমিটি ও স্থানীয় ক'জন গণ্যমান্য ব্যক্তি।


আলোচনা পর্বে প্রধান আলোচক ছিলেন স্বর্ণকিশোরী ক্লাবের লিডার ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী তাসফিয়া তাবাস্সুম। তার বক্তব্য থেকে জানা গেলো, জীবনমান উন্নয়ন, অধিকার প্রতিষ্ঠা, নারী-পুরুষ বৈষম্যহীন ও পারস্পরিক সুরক্ষামূলক সমাজ গঠনে অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি, কিশোর-কিশোরীদের মধ্যে পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ সৃষ্টি, বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তোলা ও ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি গড়ে তোলা, বাল্যবিবাহ, যৌন হয়রানি রোধকল্পে সচেতনতা সৃষ্টি, যৌতুক বিরোধী সচেতনতা তৈরি, ঝরে পড়ার হার কমানো ও প্রজনন স্বাস্থ্য বিষয়ক সচেতনতা সৃষ্টির মাধ্যমে সেবা প্রদান করা।

 


৩০ শিক্ষার্থী নিয়ে গঠিত চরকালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের স্বর্ণকিশোরী ক্লাবের আলোচনা পর্বে আরো অংশ নেন স্কুলের প্রধান শিক্ষক দলিল উদ্দিন, সাবেক প্রধান শিক্ষক মনতোষ মজুমদার, স্কুল পরিচালনা কমিটির সদস্য যথাক্রমে রমিজ উদ্দিন, মানছুর আহমদ, কামাল হোসেন গাজী, আঃ রহিম প্রধান প্রমুখ।